আজ বুধবার, , ১৮ জানুয়ারী ২০১৭ ইং

‘লাল সবুজের পতাকা’ চমকে দেবার মত ছবি!

প্রকাশিত: ২০১৬-১২-১৯ ১২:৩১:২৫

   আপডেট: ২০১৬-১২-১৯ ১২:৫৪:১৮

রেজা ঘটক

বিজয় দিবস উপলক্ষে এবার তরুণ প্রতিশ্রুতিশীল নির্মাতা সাখাওয়াত হোসেন মিঠু নির্মাণ করলেন স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র 'লাল সবুজের পতাকা'। শাওন জ্যাকসনের গল্প অবলম্বনে নির্মিত 'লাল সবুজের পতাকা' ছবিটি স্বল্পদৈর্ঘ্যের হলেও ছবির কমিটমেন্ট এবং মেসেসটি খুবই শক্তিশালী এবং দীর্ঘতর। 'লাল সবুজের পতাকা'র গল্পটি বাংলাদেশের লাল সবুজ পতাকা নিয়ে।


বাংলাদেশের বিভিন্ন জাতীয় দিবসে জাতীয় পতাকার প্রতি মানুষের অতিরিক্ত আগ্রহ এবং ভালোবাসার যে চিত্রটি দৃশ্যমান, তার বিপরীতে জাতীয় দিবসের বাইরে, অন্যান্য সাধারণ সাদামাটা দিনে সেই একই জাতীয় পতাকার প্রতি মানুষের আগ্রহের যেমন অভাব, তেমনি রয়েছে এক ধরনের অবহেলা ও অজ্ঞতা। বিশেষ দিনে যে পতাকা সবার হৃদয়ে অবস্থান করে, সাধারণ দিনে সেই পতাকার স্থান হয় ডাস্টবিনে বা ভাগাড়ে। সবার সামনেই যেন সেই জাতীয় পতাকার কপালে এক ধরনের অবহেলা আর তাচ্ছিল্য জোটে। জাতীয় পতাকার প্রতি সেই অবহেলা ও তাচ্ছিল্যের গল্পই উঠে আসে সাখাওয়াত হোসেন মিঠু'র স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র 'লাল সবুজের পতাকা'য়।

একজন টোকাইকে ঘিরে সেই গল্প। বিজয় দিবসে বিভিন্ন বয়সী অসংখ্য মানুষকে পতাকা কিনতে দেখেছে এই টোকাই। বিজয়ের পরদিন পার্কে ঘুম ভেঙে এদিক সেদিক তাকিয়ে কিছু পতাকা পরিত্যক্ত ও নোংরা অবস্থায় দেখতে পায় ওই টোকাই। টোকাই'র ধারণা, গতকাল সবাই যেহেতু খুব আগ্রহ নিয়ে এই পতাকা কিনেছে, হয়তো আজও এই পরিত্যক্ত কুড়ানো পতাকা বিক্রি করতে পারলে তার পেটের জ্বালা মিটবে। পতাকা বিক্রি করতে পারলে পেটে চারটে খাবার হয়তো জুটবে।

কিন্তু ভাগ্যের কী নির্মম পরিহাস, সেদিন আর কেউ টোকাই'র কাছ থেকে কোনো পতাকা কেনে না। বরং সবাই তাকে দূর দূর করে যেন তাড়িয়ে দেয়। শেষ পর্যন্ত টোকাই এক পাগলা কবির কাছে গিয়ে একইভাবে অনুনয় করে। পাগলা স্যার, একটা পতাকা কেনেন। পেটে খুব ক্ষুধা। কিচ্ছু খাই নাই। পতাকা নিয়া দশটা টাকা দেন, ভাত খামু!

কবি টোকাইকে পাশে ডেকে বসায়। টোকাই'র মনের খবর জানতে চায়। আর তখন কবি আবিষ্কার করেন, এই টোকাই যে এক মহা সত্যকে উন্মোচন করে দিল আজ। সত্যিই তো বিশেষ দিনের পর, এই জাতীয় পতাকার কদর আর কারো কাছে তেমন বিবেচিত হয় না। অথচ একই মানুষ বিশেষ জাতীয় দিবসে এই পতাকা নিয়ে কত উচ্ছ্বাস দেখায়, কত ভালোবাসা দেখায়। তাহলে অন্যান্য সাধারণ দিনগুলোতে এই পতাকাকে কেন এত অবহেলা?

কবি'র মন কিছুটা নরম হয়। টোকাইকে সে বলে, চল, তোর পতাকাও কিনব, তোকে আজ ভাতও খাওয়াব। চল আজ দু'জনে মিলে খাই। তারপর তাদের মধ্যে বেশ সুন্দর একটা বন্ধুত্ব হয়। কবি টোকাইকে নিয়ে স্বাধীনতা উদ্যানের শিখা চিরন্তনের সামনে যায়। জাতীয় পতাকাকে নিয়ে এই যে মানুষের দুই ধরনের আচরণ ও ব্যবহার, সেই বিষয়টি রোমন্থন করে করে কবি তার নতুন টোকাই বন্ধুকে নিয়ে পতাকার সামনে ঠায় দাঁড়িয়ে থাকে। এই দাঁড়িয়ে থাকার ভেতরে কবির অন্তরে যেমন বেদনা আছে, তেমনি পতাকার  অমর্যাদার জন্য পতাকার কাছেই এক ধরনের ক্ষমা প্রত্যাশার প্রতিচ্ছবি লুকিয়ে।

'লাল সবুজের পতাকা' ছবিতে টোকাই ও কবি চরিত্রে অভিনয় করেছেন যথাক্রমে অ্যালেন টিটো এবং কথাসাহিত্যিক ও নির্মাতা রেজা ঘটক। ছবিতে অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন মাসুদ, তুলি, মাহাবুব, সাকিব প্রমুখ। 'লাল সবুজের পতাকা' ছবিতে স্টিল ছবি তুলেছেন মাহবুবু হোসেন আর তরুণ নির্মাতা সাখাওয়াত হোসেন মিঠু নিজেই করেছেন ছবির ভিডিওগ্রাফি।

'লাল সবুজের পতাকা' ছবিটির ঘরোয়া ভার্সন দেখার পর দেশবরেণ্য কবি নির্মলেন্দু গুণ নির্মাতা সাখাওয়াত হোসেন মিঠু'র ফেসবুকে নিম্নোক্ত কমেন্ট করেছেন-  'সাখাওয়াত হোসেন মিঠু পরিচালিত ও বিশিষ্ট অভিনেতা রেজা ঘটক অভিনীত বিশ মিনিটের ক্ষুদে-নাটক "লাল সবুজের পতাকা" দেখে আমি মুগ্ধ হয়েছি। সম্পূর্ণ অচেনা-অজানা কিছু ছেলে মেয়ে এই নাটকে চমৎকার অভিনয় করেছে। একটা মাত্র ৬০-৭০ হাজার টাকা দামের ডিএসএলআর CANON ক্যামেরা দিয়ে এরকম একটা ঝকঝকে ছবি বানানো সম্ভব, আমি ভাবতেও পারিনি। নবীন পরিচালককে অভিনন্দন জানাতেই হয়। বিজয় দিবসে জাতির জন্য এটি একটি চমৎকার উপহার। এই ক্ষুদে নাটকে অংশ নিয়ে নবীন চিত্রনির্মাতাকে উৎসাহিত করার জন্য চিন্তাবিদ রেজা ঘটককে ধন্যবাদ জানাই। সবার জন্য বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা।'

কবি নির্মলেন্দু গুণের মন্তব্যের জবাবে রেজা ঘটকের প্রতিক্রিয়া ছিল এরকম- 'অভিনন্দন তরুণ নির্মাতা সাখাওয়াত হোসেন মিঠু। গুণদাকে অন্তর থেকে ধন্যবাদ। দাদা আমি ক্যামেরার সামনে খুব একটা দাঁড়াইনি। আমি মোটেও বিশিষ্ট কোনো অভিনেতা নই। জাস্ট ফলো দ্য ডিরেক্টর'স ল্যাংগুয়েজ। অবশ্যই নতুনদের সঙ্গে কাজ করে আমার খুব ভালো লেগেছে। আমি পুরোপুরি সুস্থ না থাকায় মিঠুকে বলেছিলাম ডায়লগ কমিয়ে দিতে। মিঠু আমার সেই অনুরোধ রক্ষা করে আমাকে এ-যাত্রা বাঁচিয়েছে। 'লাল সবুজের পতাকা' টিমের সবাইকে আমার প্রাণঢালা অভিনন্দন। গুণ'দার এই উৎসাহ আমাদের সবার জন্য প্রেরণার উৎস হবে। এ বছরের বিজয় দিবসে 'লাল সবুজের পতাকা' শর্ট ফিল্মটি অবশ্যই একটি চমক। নতুন নির্মাতারা এভাবে আমাদের আরো চমকিত করবে এই প্রত্যাশায় সবাইকে বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা। গুণ'দাকে আবারো ধন্যবাদ!

নির্মাতা সাখাওয়াত হোসেন মিঠু জানিয়েছেন, ১৬ ডিসেম্বর 'লাল সবুজের পতাকা' ছবিটি ইউটিউবে উন্মুক্ত হবে। এছাড়া খুব শীঘ্রই কোনো একটি প্রাইভেট টেলিভিশন চ্যানেলে ছবিটি দেখানো হবে তিনি মতামত ব্যক্ত করেন। ছবিটি প্রযোজনা করেছে 'জলরঙ'।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত