আজ সোমবার, , ২০ নভেম্বর ২০১৭ ইং

তানভীর শাহরিয়ার

১৪ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:৩১

মনে রাখবেন- আগুন সর্বভুক, ধর্মনিরপেক্ষ

হে.... খুব কায়েম করে নিচ্ছি আমরা। মুসলমানের সন্তান আমি হাচিঁ আসলে অটোমেটিক মুখ দিয়ে ‘আলহামদুলিল্লাহ’ বেরিয়ে আসে । মেট্রো-বাসে থাকলে মুখে চেপে ধরি । আওয়াজ শুনে কেউ না আবার উঠে দৌড় দেয়। কাজের জায়গায় হঠাৎ ‘ইয়া আল্লাহ’ ‘বিসমিল্লাহ' ‘মাশাআল্লাহ' মুখ দিয়ে বের হলে পাসে থাকা কলিগের ভয় পাওয়া মুখ দেখলে বুঝতেন ইসলাম কতটুকু কায়েম হচ্ছে এখন।

তিন-চার বছর আগে উমরা হজ্জে যাবার জন্য ছোট চাচা ডিজিটাল পাসপোর্ট তুলেন। তখন ওনার ক্লিন শেভ্ ছিল। হজ্জ থেকে আসার পর দাঁড়ি রাখেন। পরের বছর মাইগ্রেশন ভিসার জন্য ইউএস এম্বাসি ফেস করতে গেলেন, তখন ফাস্ট সেক্রেটারির প্রথম প্রশ্ন পাসপোর্টে দাড়ি নাই এখন দাড়ি কেন?

বিশ্বে কোন হামলা হলে প্রথমেই সবাই খোঁজে সন্ত্রাসী ‘আল্লাহু আকবার’ বলছিল কি না!  ‘আল্লাহু আকবার’- কত বিশাল একটা শব্দ- ‘সৃষ্টিকর্তা তুমি মহান'। আর সেই মহান বানীটাই খোজা হয় নিকৃষ্ট কাজের ক্লু হিসেবে। পাওয়া গেলেই হিসাবটা অনেক সহজ হয়ে যায়। আমাদের দাঁড়ি, আমাদের পোষাক, আমাদের তাকবির, আমাদের কালিমা আজ কোথায় নিয়ে যাচ্ছি আমরা?

জুমআর খুতবা শুনে নামাজ পড়ে ওযু নিয়ে একজনের ঘর ভাঙতে গেলাম, ভেঙেও ফেললাম!

একবার ভাবলামও না ঘটনা আদোও সত্য কি না ? আমার ধর্ম কি সেটা শিখিয়েছে আমাকে?

‎لَّا يَنۡهَىٰكُمُ ٱللَّهُ عَنِ ٱلَّذِينَ لَمۡ يُقَٰتِلُوكُمۡ فِي ٱلدِّينِ وَلَمۡ يُخۡرِجُوكُم مِّن دِيَٰرِكُمۡ أَن تَبَرُّوهُمۡ وَتُقۡسِطُوٓاْ إِلَيۡهِمۡۚ إِنَّ ٱللَّهَ يُحِبُّ ٱلۡمُقۡسِطِينَ ٨ ﴾ [الممتحنة: ٨]

“আল্লাহ নিষেধ করেন না ওই লোকদের সঙ্গে সদাচার ও ইনসাফপূর্ণ ব্যবহার করতে যারা তোমাদের সঙ্গে ধর্মকেন্দ্রিক যুদ্ধ করে নি এবং তোমাদের আবাসভূমি হতে তোমাদের বের করে দেয় নি। নিশ্চয় আল্লাহ ইনসাফকারীদের পছন্দ করেন।”

এখানে ইনসাফ করতে বলা হয়েছে আমাদের। আমরা কি করেছি ?

একজনের কাজের দায় (যদি করেই থাকে, পত্রিকায় আসছে ছেলেটি অশিক্ষিত, কিভাবে সম্ভব?) বাকি আটটা ফ্যামিলির উপর ফেললেন এদের উপর যে বে-ইনসাফিটা করলেন, আপনারা কি কোরআনের এই আয়াতের বরখেলাফ করলেন না ?

আল্লাহ তা‘আলা ঈমানের দাবিদার প্রতিটি মুসলিমকে নির্দেশ দিয়েছেন পরমতসহিঞ্চুতা ও পরধর্মের বা মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধা দেখাতে।

ا تَسُبُّواْ ٱلَّذِينَ يَدۡعُونَ مِن دُونِ ٱللَّهِ فَيَسُبُّواْ ٱللَّهَ عَدۡوَۢا بِغَيۡرِ عِلۡمٖۗ كَذَٰلِكَ زَيَّنَّا لِكُلِّ أُمَّةٍ عَمَلَهُمۡ ثُمَّ إِلَىٰ رَبِّهِم مَّرۡجِعُهُمۡ فَيُنَبِّئُهُم بِمَا كَانُواْ يَعۡمَلُونَ

“তারা আল্লাহ তা‘আলার বদলে যাদের ডাকে, তাদের তোমরা কখনো গালি দিয়ো না, নইলে তারাও শত্রুতার কারণে না জেনে আল্লাহ তা‘আলাকেও গালি দেবে, আমি প্রত্যেক জাতির কাছেই তাদের কার্যকলাপ সুশোভনীয় করে রেখেছি, অতঃপর সবাইকে একদিন তার মালিকের কাছে ফিরে যেতে হবে, তারপর তিনি তাদের বলে দেবেন, তারা দুনিয়ার জীবনে কে কী কাজ করে এসেছে’। “

জবাব কি রেডি রাখছেন ?

কোনো মুসলিম যদি কোনো অমুসলিমের প্রতি অন্যায় করেন, তবে রোজ কিয়ামতে খোদ নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার বিপক্ষে লড়বেন বলে হাদীসে এসেছে.....

‎  «أَلَا مَنْ ظَلَمَ مُعَاهِدًا، أَوِ انْتَقَصَهُ، أَوْ كَلَّفَهُ فَوْقَ طَاقَتِهِ، أَوْ أَخَذَ مِنْهُ شَيْئًا بِغَيْرِ طِيبِ نَفْسٍ، فَأَنَا حَجِيجُهُ يَوْمَ الْقِيَامَةِ»

“সাবধান! যদি কোনো মুসলিম কোনো অমুসলিম নাগরিকের ওপর নিপীড়ন চালিয়ে তার অধিকার খর্ব করে, তার ক্ষমতার বাইরে কষ্ট দেয় এবং তার কোনো বস্তু জোরপূর্বক নিয়ে যায়, তাহলে কিয়ামতের দিন আমি তার পক্ষে আল্লাহর দরবারে অভিযোগ উত্থাপন  করব।’

পারবেন পালাতে ?

ঐতিহাসিক বিদায় হজের দীর্ঘ ভাষণে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম সমাজে মুসলিমদের কাছে অমুসলিমদেরকে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের পক্ষ থেকে আমানত হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। সেই আমানতের দায়ভার আমার-আপনার উপর ।

কতটুকু পালন করছি আমরা?

পাশের দেশের বর্বরতা দেখে চোখ ভিজে যায়। ঘৃনায় থুথু ফেলি। ছাই হওয়া ঘর দেখে বিমর্ষ হই। রংপুরের ছাইপোড়া ঘর দেখে আমাদের ওপরও থুথু ভিজিয়ে দিচেছ না তো কেউ ?

শোয়াইব জিবরান স্যারের গতকালকের একটা কথা মনেপ্রচন্ড নাড়া দিয়েছে-

“শীত সিজনে গরীব হিন্দুর ঘর পুড়ছে বইলা নিজ ধর্মের ওম গায়ে লাগতেছে?
এই আগুনে আপনার ঘরও পুড়বে। দুই দিন আগে আর বাদে।
মনে রাখবেন- আগুন সর্বভুক, ধর্ম নিরপেক্ষ!''

সেই আগুনটাই খোঁচাচ্ছে সবাই সারা বিশ্বে !

ধর্ম একটা অনুভূতি, একটা আবেগ, একটা উপলব্ধি, একটা বোধ, একটা দায়বদ্ধতা, একটা  শৃঙ্খলাবোধ। ধর্মকে ধারণ করতে হয় বাক্যে ও কর্মে । এটা সব জাতির সব ধর্মের ক্ষেত্রে একই। অন্যের ধর্মের প্রতি সহনশীল হওয়া মানে নিজ ধর্মের প্রতি অনুগত থাকা । নিজ ধর্মের বশ্যতা মেনে চলা। এর উল্টাটা করা মানে তো নিজ ধর্মকেই অবজ্ঞা করা ।

এই বোধটা সবার ভেতরে আসা উচিত।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত