আজ রবিবার, , ২১ জানুয়ারী ২০১৮ ইং

হামিদুর রহমান, হবিগঞ্জ

২২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ২১:২০

হবিগঞ্জের কবিরের উদ্ভাবন: জ্বালানি ছাড়াই চলবে কাঠের তৈরি মোটরসাইকেল

জ্বালানি তেল ছাড়াই শুধুমাত্র ব্যাটারির মাধ্যমেই চলবে কাঠের তৈরি মোটরসাইকেল। ৪টি ব্যাটারির মাধ্যমে মোটরসাইকেলটি ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার গতিবেগে ৩০ কিলোমিটার পথ চলতে পারবে। কাঠ, লোহা আর প্লাই দিয়ে বোর্ড তৈরি এর অবকাঠামো আর-১ (আরওয়ান) বা অ্যাপাসি মোটরসাইকেলের মতো দেখতে।

এই কাঠের তৈরি মোটরসাইকেলটি উদ্ভাবন করেছেন হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়নের সাহেবনগর গ্রামের হুমায়ূন কবির। মোটরসাইকেলটি চালাতে কোন ধরনের জ্বালানি তেল বা গ্যাস প্রয়োজন হবে না।

মাধবপুর উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়নের সাহেবনগর গ্রামের হতদরিদ্র নাসির উদ্দিন এবং আফিয়া খাতুনের একমাত্র সন্তান হুমায়ূন কবির। হুমায়ূন কবিরের জন্মের ৩ মাস পর বাবা নাসির উদ্দিন তার মাকে তালাক দিয়ে অন্যত্র বিয়ে করেন।

মা আফিয়া খাতুন একমাত্র সন্তানের মুখের দিকে থাকিয়ে আর বিয়ে না করে সন্তান হুমায়ূন কবিরকে লালন-পালন ও পড়াশোনা করান। ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত এইচএসসি পরীক্ষায় সিলেট বোর্ডের অধীনে হবিগঞ্জ কবির কলেজিয়েট কলেজ থেকে অংশগ্রহণ করে কৃতিত্বের সাথে পাশ করেন কবির।

এর আগে চৌমুহনী ইউনিয়নের ডা. জরিফ হেসেন উচ্চ বিদ্যালয়ে অধ্যয়নকালে কবিরের কারিগরি প্রতিভার দিকে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন অরুণের নজর পড়ে। তার উৎসাহ ও সহযোগিতায় হুমায়ূন কবির ছোটখাটো যান্ত্রিক খেলনা তৈরিতে সক্ষম হন।

পরবর্তী সময়ে হবিগঞ্জ কবির কলেজিয়েট কলেজে অধ্যয়নকালে ২০১৫ সাল থেকে কাঠ দিয়ে ব্যাটারি চালিত মোটরসাইকেল তৈরির কাজ শুরু করেন হুমায়ূন কবির। টানা ২ বছর সাধনার পর হুমায়ূন কবির কাঠের তৈরি ব্যাটারি চালিত এ মোটরসাইকেলটি তৈরিতে সক্ষম হন।

দীর্ঘ গবেষণায় তার প্রায় ৪২ হাজার টাকা ব্যয় হয়। এটি তৈরি করতে টাকার জোগান এবং দরিদ্র অসুস্থ মাকে চিকিৎসা করাতে দৈনিক রোজ ভিত্তিক লোকজনের বাড়িতে কাঠমিস্ত্রি ও রাজমিস্ত্রির সহকারী হিসাবে কাজ করেন হুমায়ূন কবির। এসব কাজ করে অসুস্থ মায়ের চিকিৎসা ব্যয় আর সংসার চালিয়ে উদ্বৃত্ত টাকা দিয়ে হুমায়ূন কবির এ মোটরসাইকেলটি তৈরি করেন। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, কলেজের অধ্যক্ষ, কবিরের মামা ও স্বজনদের সহযোগিতায় হুমায়ূন কবিরের স্বপ্ন সফল হয়।

ডা. জরিফ হোসেন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন অরুণ বলেন, হুমায়ুন কবির কাঠ দিয়ে ব্যাটারি চালিত মোটরসাইকেল আবিষ্কার করে সকলকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। মোটরসাইকেলটির ডিজাইন হুমায়ূন কবির নিজেই করেছে। কাঠ, লোহা আর প্লাই বোর্ডের সিট ব্যবহার করে মোটরসাইকেলটি তৈরি করা হয়েছে।

মোটরসাইকেলটির উদ্ভাবক হুমায়ূন কবির সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা কিংবা ভালো কোন দেশীয় প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তার গবেষণালব্ধ কাঠের তৈরি ব্যাটারিচালিত মোটরসাইকেল উৎপাদন করে স্বল্প মূল্যে এদেশের মানুষের কল্যাণে বাজারজাত করতে আগ্রহী।

কবির বলেন, দেশীয় প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতা পেলে আমি মোটরসাইকেলের নতুন নতুন ডিজাইন তৈরি করে চমক সৃষ্টি করতে পারবো।

 

আপনার মন্তব্য

আলোচিত