আজ বৃহস্পতিবার, , ২৩ নভেম্বর ২০১৭ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

২০ অক্টোবর, ২০১৭ ১৮:০৫

ক্যান্সারের মাত্রা বাড়ায় চিনি

চিনির সঙ্গে ক্যান্সারের সংযোগ খুঁজে বের করেছেন গবেষকরা। ক্যান্সার কোষ গঠনের সঙ্গে চিনির সম্পর্ক নিয়ে দীর্ঘ নয় বছর ধরে গবেষণা চালিয়েছেন বেলজিয়ামের ভ্লামস ইনস্টিটিউট ভুর বায়োটেকনোলজি (ভিআইবি), ক্যাথলিক ইউনিভার্সিতাইত লিউভেন (কেইউ লিউভেন) ও ভ্রিজ ইউনিভার্সিতাইত ব্রাসেলসের (ভিইউবি) বিশেষজ্ঞরা।

গবেষণায় মূলত দেহস্থিত টিউমারগুলোকে স্ফীত করে তোলায় ওয়ারবার্গ ইফেক্টের (যে প্রক্রিয়ায় ক্যান্সার কোষ দ্রুত চিনি ভেঙে শক্তি গ্রহণ করে) ভূমিকাকে পরিষ্কার করেছেন গবেষকরা, যা নিবন্ধ আকারে প্রকাশ হয়েছে নেচার কমিউনিকেশনস জার্নালে।

গবেষণাটির মাধ্যমে চিকিত্সা বিজ্ঞানীদের সামনে দেহে শর্করার মাত্রা ও ক্যান্সারের পারস্পরিক সম্পর্ক আরো পরিষ্কার করে তুলে ধরা হয়েছে। ফলে চিকিত্সকদের জন্য ক্যান্সারাক্রান্ত রোগীর স্বাস্থ্যসম্মত পথ্য নির্ধারণ আরো সহজ হয়ে এল বলে মনে করা হচ্ছে।

ভিআইবি ও কেইউ লিউভেনে কর্মরত বিশেষজ্ঞ জোহান থেভেলেইন, ভিআইবি ও ভিউবির ভিম ভারসিস ও কেইউ লিউভেনের ভির্ল জানসেনসের নেতৃত্বে এ গবেষণা কার্যক্রম শুরু হয় ২০০৮ সালে। গবেষণার মূল উদ্দেশ্য ছিল দেহের সুস্থ টিস্যুগুলোর তুলনায় চিনিকে ভেঙে ল্যাকটেটে পরিণত করায় টিউমার কোষগুলোর পারঙ্গমতা বেশি না কম, সেটি পর্যবেক্ষণ করা।

ক্যান্সারের ঝুঁকিসংবলিত কোষগুলোর বিপাক ক্রিয়ার অস্বাভাবিকতা যে ক্যান্সারের শঙ্কা বাড়িয়ে তোলে, তা এ পরীক্ষায় প্রমাণিত। এ বিষয়ে গবেষক অধ্যাপক জোহান থেভেলেইন বলেন, ‘ক্যান্সারের ঝুঁকিসংবলিত কোষগুলোর অস্বাভাবিক বেশি ধরনের চিনি গ্রহণ কীভাবে অবিরাম ক্যান্সারের কোষ গঠন ও বৃদ্ধিতে ভূমিকা রেখে চলেছে, তা আমাদের গবেষণায় পরিষ্কার হয়ে উঠেছে। এর মাধ্যমে ওয়ারবার্গ ইফেক্ট ও টিউমারের আগ্রাসী গঠনকে ব্যাখ্যা করা যাচ্ছে। চিনি ও ক্যান্সারের মধ্যকার এ সম্পর্কের সুদূরপ্রসারী প্রভাব রয়েছে।’

আপনার মন্তব্য

আলোচিত