আজ বুধবার, , ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং

নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ অক্টোবর, ২০১৭ ১০:১৭

বিজ-বিজনেস এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড জিতল আমারএমপি

দি ওয়ার্ল্ড কনফেডারেশন অফ বিজনেস আমারএমপিকে বিজ়-বিজনেস এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ডের বিজয়ী হিসেবে নির্বাচিত করেছে।

দি ওয়ার্ল্ড কনফেডারেশন অফ বিজনেস এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জেসাস মোড়ান, সম্প্রতি পাঠানো একটি চিঠিতে আমারএমপি এর চেয়ারম্যান সুশান্ত দাস গুপ্তকে বলেন, “আমাদের ব্যবসায়িক উৎকৃষ্টতা নির্ধারণের মাপকাঠি যেমন, বিজনেস লিডারশীপ, উৎকৃষ্ট পণ্য এবং / বা পরিষেবাগুলোর, ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম, উদ্ভাবন এবং সৃজনশীলতা, কর্পোরেট সামাজিক দায়িত্ব এবং ফলাফল অর্জন – এসব ক্ষেত্রে আপনার প্রতিষ্ঠান আমারএমপি ধারাবাহিকভাবে উন্নতি করছে।”  

আমারএমপি'র ধারাবাহিক সফলতা অর্জনকে অভিনন্দন জানিয়ে তিনি আমারএমপিকে পরবর্তী পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, পরবর্তী পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান তিনটি দেশের তিনটি শহর -দুবাই, প্রাগ এবং মিয়ামি বিচ-এ অনুষ্ঠিত হবে।

দি ওয়ার্ল্ড কনফেডারেশন অফ বিজনেস এর এই অনন্য স্বীকৃতি গ্রহণ করে সুশান্ত দাসগুপ্ত বলেন, "এই স্বীকৃতি আমারএমপি টিমকে আরও অনুপ্রাণিত করবে। আমি নিশ্চিত যে আমারএমপি এর এই অর্জন আমাদের অ্যাম্বাসেডর, স্বেচ্ছাসেবী এবং বন্ধুদের অনুপ্রাণিত করবে এবং তারা বিভিন্ন সরকারী বিভাগ থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করে নাগরিক সেবাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে সক্ষম হবেন।”

তিনি বলেন, “আমরা অত্যন্ত আনন্দিত যে দি ওয়ার্ল্ড কনফেডারেশন অফ বিজনেস, বিজনেস এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ডের বিজয়ী হিসেবে নির্বাচন করে আমারএমপিকে বৈশ্বিক স্বীকৃতি দিয়েছে। আমরা বিজ়-বিজনেস এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড আমাদের কাজ করার মানসিকতাকে আরও দৃঢ় করেছে।”

উল্লেখ্য, আমারএমপি (https://amarmp.com) একটি সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা যা সকল নাগরিককে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সংবিধানে স্বীকৃত সমস্ত মানবাধিকারকে স্বীকৃতি দিতে, বুঝতে এবং অনুশীলন করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে আসছে। আমারএমপি সম্প্রতি দক্ষিণ এশিয়া এমবিলিওন্থ অ্যাওয়ার্ড ২০১৭ অর্জন করেছে এবং আমারএমপি ছিল একমাত্র বাংলাদেশী সংস্থা যেটি ২০১৭ এই পুরস্কার পেয়েছে।
 
ওয়ার্ল্ডকব (http://worldcob.org) এর কাজ হল বিশ্বব্যাপী ব্যবসায়িক সাফল্যকে প্রচার করা, প্রতিটি দেশের প্রধান ব্যবসার এবং ব্যবসায়ীদের স্বীকৃতি এবং বৃদ্ধির জন্য বিশেষ সরঞ্জাম ও সেবার স্বীকৃতি দেয়া। সংস্থাটির তিন হাজারের বেশি সদস্য রয়েছে যারা ১০০টিরও বেশি দেশের প্রতিনিধিত্ব করে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত