আজ বৃহস্পতিবার, , ২৩ নভেম্বর ২০১৭ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

১১ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০৫

রংপুরে হিন্দুদের বাড়িতে হামলা-আগুন, সংঘর্ষে নিহত ১

ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ করার সময় রংপুরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। এসময় আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ জন।

শুক্রবার সদর উপজেলার পাগলাপীর এলাকায় এ সংঘর্ষের একপর্যায়ে কমপক্ষে পাঁচটি হিন্দু বাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও ১০টি বাড়ি ভাংচুর করা হয়।

স্থানীয়রা জানায়, পাগলাপীর সলেয়াসা এলাকায় সম্প্রতি টিটু রায় নামের এক তরুণ ফেসবুকে ধর্ম অবমাননা করে পোস্ট দেয় বলে অভিযোগ ওঠে। ওই তরুণের শাস্তির দাবিতে শুক্রবার জুমার নামাজের পর সলেয়াসা বাজার এলাকায় বিক্ষোভ সমাবেশ ডাকা হয়। নামাজের পর কয়েকশ' মানুষ সেখানে সমবেত হয়ে রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন। এ সময় ওই সড়কের দু'পাশে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে।

তারা আরও জানায়, খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে গিয়ে বিক্ষোভকারীদের রাস্তা ছেড়ে দেওয়ার আহ্বান জানায়। এ নিয়ে পুলিশের সঙ্গে তাদের কথা কাটাকাটি, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ বাধে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ৫০ রাউন্ড টিয়ার গ্যাসের শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এসময় পুলিশসহ আহত হয় অন্তত ১৫ জন। তাদের মধ্যে হাবিব মিয়া, মাহবুব মিয়া, আলীম মিয়া, নাজির হোসেন, আলিম ও জামিলকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত পুলিশ সদস্যদের মধ্যে তিনজনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন-এসআই সেলিম মিয়া, কনস্টেবল নাসির হোসেন ও রফিকুল ইসলাম।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের একপর্যায়ে বিক্ষোভকারীরা সলেয়াসা বাজার ব্রাহ্মপাড়া এলাকায় হিরেন বাবু, ধীরেন রায়, মন্টুসহ পাঁচ হিন্দু বাড়িতে আগুন দেয় ও ১০টি বাড়িতে ভাংচুর চালায়।

হিরেন অভিযোগ করেন, একদল লোক এসে তার বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে তার সব কিছু পুড়ে গেছে।

কোতোয়ালী থানার ওসি (তদন্ত) আজিজুল ইসলাম জানান, মহাসড়ক অবরোধ থেকে সরে যাওয়ার আহ্বান জানালে বিক্ষোভকারীরা পুলিশের ওপর ইটপাটকেল ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা টিয়ার শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এসময় কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হন। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে বলে জানান তিনি।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত