আজ শুক্রবার, , ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

১৮ জানুয়ারী, ২০১৮ ২২:৫৩

আইভী অসুস্থ, হাসপাতালে ভর্তি

অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তিনি বুকে ব্যথা অনুভব করেন, রক্তচাপও কমে যায়। বমিও করেন। বর্তমানে তিনি রাজধানীর ল্যাব এইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে নারায়ণগঞ্জ নগর ভবনে অসুস্থ হয়ে পড়েন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও মেয়র আইভী।

নগর ভবনের চিকিৎসক মেয়রের স্বাস্থ্যপরীক্ষা করেন। পরে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে মেয়রকে দ্রুত রাজধানীর ল্যাব এইড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

জানা যায়, একজন হৃদরোগ বিশেষজ্ঞের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করেছে ল্যাব এইড কর্তৃপক্ষ। সন্ধ্যার পর চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, মেয়র আইভী এখন শঙ্কামুক্ত। তিনি এখন পর্যবেক্ষণে আছেন।

মেয়র আইভীর ভাই আহাম্মদ আলী রেজা উজ্জ্বল সাংবাদিকদের জানান, বিকেল ৩টার দিকে মেয়র আইভী নগর ভবনের দপ্তরে একজন প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকের সঙ্গে কথা বলছিলেন। এ সময় তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে নগর ভবনের চিকিৎসক তাঁর স্বাস্থ্যপরীক্ষা করেন। তাঁর শরীরে রক্তচাপ হঠাৎ করে কমে গেলে তাৎক্ষণিকভাবে তাঁকে স্যালাইন দেওয়া হয়। এ সময় মেয়র বমি করেন। পরে মেয়র আইভীকে অ্যাম্বুলেন্সে করে রাজধানীর ঢাকায় ল্যাব এইড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

ল্যাব এইডের চিকিৎসক বরেণ চক্রবর্তী জানান, মেয়র আইভী এখন শঙ্কামুক্ত। তবে তাকে ২৪ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।

বরেণ চক্রবর্তী বলেন, ‘যেহেতু শরীরে আঘাতের দাগ আছে, তিনি (মেয়র) বমি করেছেন, সেহেতু অন্যান্য পরীক্ষাও করা হচ্ছে।’

নারায়ণগঞ্জ শহরের ফুটপাতে হকার রাখা ও উচ্ছেদ নিয়ে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান ও মেয়র আইভীর সঙ্গে দ্বন্দ্ব চলছে। গত মঙ্গলবার বিকেলে মেয়র ফুটপাত দিয়ে হেঁটে হেঁটে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবে যাওয়ার সময় হকার ও শামীম ওসমানের সমর্থকদের সঙ্গে মেয়র আইভীর সমর্থকদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। প্রতিপক্ষের লোকজন মেয়র আইভীকে পিটিয়ে ও বৃষ্টির মতো ইটপাটকেল ছুঁড়ে হত্যার চেষ্টা করে। এতে আহত হয়ে রাস্তার ওপর বসে পড়েন আইভী। সমর্থকরা মানবদেয়াল তৈরি করে আঘাত সহ্য করে তাঁকে প্রাণে রক্ষা করেন।

পরে মেয়র আইভী সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন, সংসদ সদস্য শামীম ওসমান ওই ঘটনার জন্য দায়ী। তার কর্মী নিয়াজুল দুই গজ দূরে দাঁড়িয়ে থেকে পিস্তল উচিয়ে তাকে হত্যা করতে চেয়েছিলেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত