আজ সোমবার, , ২৬ জুন ২০১৭ ইং

বড়লেখায় টানা বর্ষণে টিলা ধসে মা-মেয়ের মৃত্যু, বিচ্ছিন্ন সড়ক যোগাযোগ

প্রকাশিত: ২০১৭-০৬-১৮ ১৭:৫১:৪৩

   আপডেট: ২০১৭-০৬-১৯ ০০:৩২:৩৮

বড়লেখা প্রতিনিধি

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় প্রবল বর্ষণে টিলার ধসে মাটি চাপায় মৃত্যু হয়েছে মা ও মেয়ের। টিলার মাটি ও গাছ পড়ে বন্ধ হয়ে গেছে রাস্তা। ফলে বিচ্ছিন্ন রয়েছে উপজেলা সদরের সাথে সড়ক যোগাযোগ।

শনিবার (১৭ জুন) দিবাগত রাত সোয়া তিনটার দিকে বড়লেখা উপজেলা সদর ইউনিয়নের ডিমাই এলাকার বিওসি কেছরিগুল (বতাউরা) গ্রামে এই টিলা ধসের ঘটনা ঘটে।

টিলা ধসে নিহতরা হচ্ছেন, ডিমাই গ্রামের মৃত আব্দুস ছাত্তারের স্ত্রী আফিয়া বেগম (৪০) ও মেয়ে ফাহমিদা বেগম (১৩)। নিহত ফাহমিদা বেগম স্থানীয় কেছরিগুল উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী।

এ নিয়ে বড়লেখায় টিলা ধসে গত চার বছরে ৫ জনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটলো। এর আগে ২০১৪ সালের ৯ মে উপজেলার শাহবাজপুর চা-বাগানে টিলা ধসে শিশুসহ চা-শ্রমিক পরিবারের তিন সদস্য নিহত গিয়েছিলেন।



এদিকে, প্রবল বর্ষণে বড়লেখা সদর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের কেছরিগুল নামক এলাকায় টিলা ধসে উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, প্রশাসন ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার মধ্যরাত থেকে বড়লেখা এলাকায় ভারি বর্ষণ শুরু হয়। রোববার সকাল পর্যন্ত এই বর্ষণ অব্যাহত ছিল। শনিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে হঠাৎ করে বড়লেখা উপজেলা সদর ইউনিয়নের ডিমাই এলাকার বিওসি কেছরিগুল (বতাউরা) গ্রামে একটি টিলা ধসে দুটি ঘরের উপর পড়ে যায়। এতে একটি ঘরের ভেতরে থাকা আফিয়া বেগম ও তাঁর মেয়ে ফাহমিদা বেগম মাটিচাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান। পাশের কয়ছর মিয়ার ঘরে থাকা তিনজন টিলা ধস টের পেয়ে দ্রুত ঘর থেকে বেরিয়ে যাওয়ায় প্রাণে রক্ষা পান।



রোববার সকালে স্থানীয় লোকজন মাটির নিচ থেকে মা ও মেয়েকে উদ্ধার করেছেন। আফিয়া বেগমের একমাত্র ছেলে ফাহিম আহমদ (১৬) নানা বাড়িতে থাকায় সে বেঁচে গেছে বলে জানা যায়।
   
দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) রওশনুজ্জামান সিদ্দিকী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কুলাউড়া সার্কেল) মোহাম্মদ আবু ইউসুফ, বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম আব্দুল্লাহ আল মামুন, বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ সহিদুর রহমান প্রমুখ।

নিহত আফিয়া বেগমের মা নাজমা বেগম (৮০) সিলেটটুডেকে জানান, তাঁর মেয়ের জামাই (আফিয়া বেগমের স্বামী) আব্দুস ছাত্তার ২০০৫ সালে মাটিচাপা পড়ে মারা গিয়েছিলেন। টিলা কাটার সময় মাটি চাপা পড়ে মারা যান তিনি।



বড়লেখা সদর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. সোয়েব আহমদ ও স্থানীয় ইউপি সদস্য সিরাজ উদ্দিন বলেন, গতকাল (শনিবার) রাত ১২টা থেকে আজ (রোববার) সকাল ১০টা পর্যন্ত টানা ভারি বৃষ্টি হয়েছে। এতে টিলার মাটি ধসে নিচে থাকা ঘরের উপর পড়ে। এতে মাটি চাপা পড়ে মা-মেয়ে মারা গেছেন।
 
বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ সহিদুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রোববার সিলেটটুডেকে বলেন, টিলার কাছে টিন ও বেড়ার ঘর ছিল। টিলার মাটি ধসে ঘরের নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই মা-মেয়ে দুজন মারা গেছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম আব্দুল্লাহ আল মামুন সিলেটটুডেকে বলেন, ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। পাহাড়ি এলাকার বাসিন্দাদের নিরাপদে থাকার জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে আগে মাইকিং করানো হয়েছিল। কিন্তু তারা কেউই সরেননি। দুর্ঘটনায় মা-মেয়ের মৃত্যু হলেও এই পরিবারের একমাত্র ছেলে নানা বাড়ি থাকায় সে বেঁচে গেছে। তাকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরণের সহযোগিতা করা হবে।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত