আজ সোমবার, , ২৩ অক্টোবর ২০১৭ ইং

বড়লেখা প্রতিনিধি

১২ আগস্ট, ২০১৭ ০০:১০

বড়লেখায় ধান কাটা নিয়ে সংঘর্ষের মামলার আসামির দণ্ড

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় ১৯৯৯ সালের ধান কাটা নিয়ে সংঘর্ষের মামলা নম্বর-জিআর/৪৭০ এর রায়ে আব্দুল মানিক নামের এক আসামির ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড, ৫ হাজার টাকা জরিমানা হয়েছে। জরিমানা অনাদায়ে আসামির আরও ১ মাসের সশ্রম কারাদণ্ডের রায় দিয়েছেন আদালত। বাদী পক্ষের আপিলের প্রেক্ষিতে দীর্ঘ শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার (১০ আগস্ট) বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট মো. হাসান জামান এ রায় দেন।

বাদী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের এপিপি এডভোকেট গোপাল চন্দ্র দত্ত। আসামি আব্দুল মানিক উপজেলার উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের পুকুরিয়া গ্রামের বাসিন্দা। আসামি আব্দুল মানিক পলাতক রয়েছেন।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ১৯৯৯ সালের নভেম্বর মাসে উপজেলার উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের পুকুরিয়া গ্রামে ধান কাটা নিয়ে সংঘর্ষের মামলার বাদী আব্দুল মান্নান ও টেম্পুগাড়ি চালক আব্দুল মানিক গংদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ওই সময় লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে মামলার সাক্ষী তুতিউর রহমান গুলিবিদ্ধ হন।

এ ঘটনায় আব্দুল মান্নান বাদী হয়ে বড়লেখা থানায় আব্দুল মানিককে ১নম্বর আসামি করে আরও কয়েক জনের নামে মামলা করেন। এ মামলায় দীর্ঘ বিচার প্রক্রিয়া শেষে আসামির ২ বছরের কারাদণ্ড দেন বিজ্ঞ আদালত। পরে রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে মামলা থেকে অব্যাহতি পান আসামি আব্দুল মানিক। কিন্তু বাদীপক্ষ এ রায়ে পুনরায় আপিল করলে মামলাটি বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বিচারের জন্য ফেরত আসে।

এ আদালতে দীর্ঘ শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার আদালতের দেয়া রায়ে আসামি আব্দুল মানিকের ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড, ৫ হাজার টাকা জরিমানা ও জরিমানা অনাদায়ে আরও ১ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড হয়।

বড়লেখা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের এপিপি এডভোকেট গোপাল চন্দ্র দত্ত মারামারি মামলায় আসামির দণ্ডের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘আসামি আব্দুল মানিক পলাতক রয়েছেন।’

আপনার মন্তব্য

আলোচিত