আজ বৃহস্পতিবার, , ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং

সিলেটটুডে ডেস্ক

১৩ আগস্ট, ২০১৭ ০১:৫১

তারেক মাসুদ-মিশুক মুনীরের মৃত্যুবার্ষিকী রোববার

চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ ও চিত্রগ্রাহক মিশুক মুনীরের ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী আজ (১৩ আগস্ট)।

২০১১ সালের এই দিনে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার জোকা এলাকায় এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান তারেক মাসুদ এবং মিশুক মুনীরসহ পাঁচজন। দেশে এবং দেশের বাইরে নিজেদের কাজের মাধ্যমে বাংলাদেশকে পরিচিত করেছিলেন এই দুই গুণী ব্যক্তি।

২০১১ সালের ১৩ আগস্ট মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার সালজানা গ্রামে ‘কাগজের ফুল’ ছবির লোকেশন দেখে ঢাকা ফেরার পথে দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে প্রচণ্ড বৃষ্টির মধ্যে তারেক মাসুদ- মিশুক মুনীরদের বহনকারী মাইক্রোবাসের (ঢাকা মেট্রো-চ-১৩-০৩০২) সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা চুয়াডাঙ্গাগামী চুয়াডাঙ্গা ডিলাক্স পরিবহনের একটি বাসের (ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-৪২৮৮) মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

এতে ঘটনাস্থলেই চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ ও এটিএন নিউজের তৎকালীন প্রধান নির্বাহী ও চিত্রগ্রাহক মিশুক মুনীর, মাইক্রোবাসের চালক মোস্তাফিজুর রহমান, প্রোডাকশন সহকারী মোতাহার হোসেন ওয়াসিম ও জামাল হোসেন নিহত হন।

এ দুর্ঘটনায় তারেক মাসুদের স্ত্রী ক্যাথরিন মাসুদ, শিল্পী ঢালী আল-মামুন ও তাঁর স্ত্রী দিলারা বেগম জলি এবং তারেক মাসুদের সহকারী মনীশ রফিক আহত হন।

আদম সুরত, মুক্তির গান, মুক্তির কথা, মাটির ময়না, অন্তর্যাত্রা ও রানওয়ে-এর মতো ছবি দিয়ে তারেক মাসুদ বাংলা চলচ্চিত্রের নতুন ধারার সূচনা করেছেন। মিশুক মুনীর তারেক মাসুদের ছবির প্রধান চিত্রগ্রাহক হিসেবে কাজ করেন। এছাড়া তিনি ‘রিটার্ন টু কান্দাহার’, ‘ওয়ার্ডস অব ফ্রিডম’ প্রামাণ্যচিত্রে কাজ করেছেন।

তারেক মাসুদ ১৯৮৫ সালের শেষ দিকে বরেণ্য চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানকে নিয়ে নির্মাণ করেন প্রথম প্রামাণ্যচিত্র আদম সুরত। এরপর ১৯৯৫ সালে নির্মাণ করেন মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসনির্ভর দুটি প্রামাণ্যচিত্র মুক্তির গান ও মুক্তির কথা। তিনি ২০০২ সালে নির্মাণ করেন প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র মাটির ময়না।

মিশুক মুনীর শহীদ বুদ্ধিজীবী মুনীর চৌধুরীর ছেলে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের পাঠ শেষে ওই বিভাগে শিক্ষক হিসেবে যোগ দেন তিনি। চিত্রগ্রাহক ও সম্প্রচার সাংবাদিকতার পথিকৃৎ মিশুক মুনীর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশে বিবিসির হয়ে কাজ করেছেন।

কর্মসূচি
এই দুই সৃজনশীল ব্যক্তির মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চলচ্চিত্র সংসদসহ বিভিন্ন সংগঠন শুক্রবার নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চলচ্চিত্র সংসদের আয়োজনে শুক্রবার শুরু হয়েছে আন্তর্জাতিক আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র উৎসবের নবম আসর। শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক মিলনায়তনে তারেক মাসুদের প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে এই বিশেষ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়।

তারেক মাসুদের ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে তাঁর গ্রামের বাড়ি ফরিদপুরের ভাঙ্গা পৌরসভার নূরপুরে নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে তারেক মাসুদ মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ও তারেক মাসুদ-মিশুক মুনীর চলচ্চিত্র সংসদ। এর মধ্যে রয়েছে সমাধি চত্বরে স্মরণসভা, আলোকচিত্র প্রদর্শনী, মাটির ময়না চলচ্চিত্র প্রদর্শনী।

দিনব্যাপী এ কর্মসূচিতে তারেক মাসুদের স্ত্রী ক্যাথরিন মাসুদ ও বিশিষ্ট ব্যক্তিরা উপস্থিত থাকবেন।

আপনার মন্তব্য

আলোচিত